Home / অন্যরকম খবর / ১৫ লাখ টাকায় ছাগল কেনা নিয়ে যা বললেন ইফাত

১৫ লাখ টাকায় ছাগল কেনা নিয়ে যা বললেন ইফাত

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: ফেসবুকে কোরবানি উপলক্ষে ১৫ লাখ টাকায় একটি ছাগল কিনতে গিয়ে আলোচনার জন্ম দেন মুস্তাফিজুর রহমান ইফাত নামের এক তরুণ। তিনি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কর্মকর্তা মতিউর রহমানের ছেলে বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে এসেছে। এদিকে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইফাতের পোস্ট ভাইরাল হলে দেশজুড়ে শুরু হয় সমালোচনার ঝড়। যদিও সাদিক এগ্রো বলছে, ১ লাখ টাকা বায়না করেও শেষপর্যন্ত আর ছাগলটি কেনেননি সেই ইফাত।

এরই মধ্যে জানা যায় সেই ভাইরাল হওয়া খাসিটি কেনেননি ইফাত। যোগাযোগ করা হলে মুঠোফোনে তিনি জানান, সাদিক এগ্রোর কর্ণধার ইমরানের অনুরোধে ছবি তুলেছেন তিনি। খাসিটি কেনার জন্য না।

তিনি বলেন, সাদিক এগ্রোর যিনি মালিক ইমরান ভাই। তার কথা অনুযায়ী আমি ছবি তুলি। পরে সবাইকে বলি খাসিটি কিনেছি। আসলে খাসিটি কেনা হয়নি, সেটা বাসায়ও আনা হয়নি। সেটি কুরবানিও দেয়া হয়নি। কিন্তু তার কারণে আজকে আমাকে এদিন দেখতে হবে তা আমি কোনো দিনও বুঝিনি।

পরে যোগাযোগ করা হলে সাদিক এগ্রোর মালিক ইমরান জানান, খাসিটি ১২ লাখে কেনার জন্য এক লাখ টাকা বায়না করেছিলেন ইফাত। পরে বিষয়টি ভাইরাল হলে আর খাসিটি নেননি তিনি। কুরবানির আগ পর্যন্ত এগ্রো থেকে বার বার যোগাযোগ করা হলেও রেসপন্স করেননি ইফাত।

তিনি আরও বলেন, ইফাত নামের একটি ইয়াং ছেলে ২০ থেকে ২২ বছর হয়তো বয়স হবে। ও আমার কাছে ছাগলটা কিনছে, দামাদামি করছে। আমাকে এক লাখ টাকা বুকিং দিয়ে গেছে। ১২ তারিখে বাকি টাকা দিয়ে ছাগলটা নেয়ার কথা। ১১ তারিখ দিবাগত রাত থেকে আমরা তাকে আর যোগাযোগ করতে পারছি না। ছাগলটা এখনো আমাদের খামারে আছে। সে ছাগলটা ব্যালেন্স টাকা দিয়ে ডেলিভারি নেয় নাই।

এদিকে ইফাতের ফেসবুক ঘেটে দেখা যায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কর্মকর্তা মতিউর রহমান তার বাবা। যদিও গণমাধ্যমে ইফাত তার ছেলে নয় বলে দাবি করেছেন মতিউর রহমান।

Check Also

৫শ টাকা না দেওয়ায় জিডি করতে পারলেন না পুলিশ সুপার!

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: যশোরের কোতোয়ালি মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গিয়েছিলেন জেলার নতুন দায়িত্ব …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 + 4 =

Contact Us