সর্বশেষ সংবাদ
Home / অপরাধ জগত / ঈদের আগে বেপরোয়া অপরাধী চক্র

ঈদের আগে বেপরোয়া অপরাধী চক্র

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: যে কোনো বড় উৎসব-পার্বণ কেন্দ্র করে দেশে আরও সক্রিয় হয় অপরাধী চক্র। বাড়ে মৌসুমি অপরাধীর সংখ্যা। ঘরে-বাইরে চলার পথে এসময় বাড়ে চোর, ডাকাত, ছিনতাইকারীর দৌরাত্ম্য। মুসলমান ধর্মাবলম্বিদের অন্যতম বড় উৎসব ঈদুল ফিতর কেন্দ্র করে রমজানের শুরুতেই সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি, টানাপার্টি ও কিশোর গ্যাং চক্রের তৎপরতা বেড়েছে। আর এ চক্রের অপতৎপরতা ঠেকাতে সর্বশক্তি নিয়ে মাঠে নেমেছে পুলিশ-র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঈদুল ফিতর ঘনিয়ে আসতেই ঢাকায় ছিনতাইকারীরা বেপরোয়া হয়ে উঠছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানেও থেমে নেই অপরাধ। এ সময়ে মৌসুমি অপরাধীদের দৌরাত্ম্য বাড়ে। আবার কারাগার থেকে যারা জামিনে বের হচ্ছেন তারাও বিভিন্ন অপরাধে যুক্ত হচ্ছেন।

ডিএমপি বলছে, ঢাকা মহানগরের সব এলাকায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করা হয়েছে। ছিনতাই, চাঁদাবাজি, অজ্ঞানপার্টি ও মলমপার্টির তৎপরতা ঠেকাতে মাঠে আছেন পুলিশ সদস্যরা। রাজধানীর বড় বড় বাণিজ্যিক কেন্দ্র, শপিংমলে নেওয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এসব এলাকা চিহ্নিত করে ইউনিফর্মে ও সাদা পোশাকে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বাড়ানো হয়েছে গোয়েন্দা নজরদারিও।

গত ২৫ মার্চ রাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাতদলের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) সদস্যরা। এসময় তাদের কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত দুটি চাপাতি ও দুটি ছোরা উদ্ধার করা হয়। র‍্যাব-২ জানায়, গ্রেফতাররা একটি সংঘবদ্ধ ডাকাতদলের সক্রিয় সদস্য। তারা বেশ কিছুদিন ধরে মোহাম্মদপুরসহ আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে চুরি ও ডাকাতি করে আসছিল। রমজান ও ঈদের আগে তাদের ডাকাতির কার্যক্রম বাড়ে।

রমজান কেন্দ্র করে ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি ও কিশোর গ্যাং চক্রের তৎপরতা ঠেকাতে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছে র‌্যাব। এরই মধ্যে অভিযানে রাজধানীর বিমানবন্দর, বনানী, মহাখালী, ভাটারা, আব্দুলাহপুর, টঙ্গী ও গাজীপুর এলাকা থেকে ছিনতাইকারী চক্রের ৩২ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে বাহিনীটি।

র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোস্তাক আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, ‘রমজান কেন্দ্র করে সম্প্রতি ছিনতাইকারী, অজ্ঞানপার্টি, মলমপার্টি ও কিশোর গ্যাং চক্রের তৎপরতা বেড়েছে। ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা নিরীহ মানুষের জীবন অতিষ্ঠ করে তুলছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে র‌্যাব-১ গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ায় এবং রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত সংঘবদ্ধ চক্রকে শনাক্ত করতে সক্ষম হয়।’

এরই ধারাবাহিকতায় রোববার রাতে র‌্যাব-১ এর আভিযানিক দল রাজধানীর বিমানবন্দর, বনানী, মহাখালী, ভাটারা, আব্দুলাহপুর, টঙ্গী ও গাজীপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ছিনতাইকারী চক্রের ৩২ সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করে। এসময় তাদের কাছ থেকে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত ২১টি চাকু, ১৯টি মোবাইল ফোন, একটি মানিব্যাগ, চারটি ছুরি ও নগদ ৯ হাজার ৯৯০ টাকা উদ্ধার করা হয় বলে জানান তিনি।

Check Also

কিশোর অপরাধীদের নিয়ে যে নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: কিশোর অপরাধীদের সংশোধনের ওপর জোর দেওয়ার বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 − 11 =

Contact Us