সর্বশেষ সংবাদ
Home / স্থানীয় খবর / কুসুম্বী / শেরপুরে দুই পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে এক নারী নিহত, আহত আট

শেরপুরে দুই পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে এক নারী নিহত, আহত আট

শেরপুর ডেস্কঃ বগুড়ার শেরপুরে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে শেফালী বেগম (৪৮) নামে এক গৃহবধূ নিহত হয়েছেন। বুধবার (০৭ডিসেম্বর) ভোররাতে বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের আরও অন্তত আটজন গুরুতর আহত হয়েছেন। এরমধ্যে গুরুতর আহত তিনজনকে বগুড়ার শজিমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (০৬ডিসেম্বর) সকাল নয়টার দিকে উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের বেলঘরিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নিহত শেফালী বেগম ওই গ্রামের বাচ্ছু মিয়ার স্ত্রী।

সংঘর্ষে আহতরা হলেন- বেলঘরিয়া গ্রামের ইয়াসিন আলীর ছেলে বাচ্ছু মিয়া (৫০), তার ছেলে ইব্রাহিম হোসেন (৩৫), মো. রাব্বী মিয়া (২৫), রাজমহর আলী ওরফে ঠাÐু মিয়া (৫০), স্ত্রী রুবি বেগম (৪০)সহ আটজন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঘটনার দিন সকালে প্রতিবেশি রাজমহর ওরফে ঠাÐুর বাড়ির সামনে বাচ্ছু মিয়া ও তার স্ত্রী শেফালী বেগম স্থানীয় ভাষায় (ভুত মেশিন) কলে ধান-মাড়াইয়ের কাজ করছিলেন। এসময় খড়-কুটো ও ধুলা-বালি ঠান্ডুর মিয়ার বাড়ির ভেতরে যায়। এনিয়ে শেফালী বেগম ও ঠাÐুর স্ত্রী রুবি বেগমের মধ্যে ঝগড়া হয়। পরবর্তীতে উভয়পক্ষ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এই ঘটনায় বেশকয়েকজন আহত হন। একপর্যায়ে ইট দিয়ে শেফালী বেগমের বুকে আঘাত করা হয়। এতে জ্ঞান হারিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে আহত আটজনকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে যান। এরমধ্যে চারজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাৎক্ষণিক বগুড়ায় শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেফালী বেগম মারা যান।

নিহত গৃহবধূর স্বামী বাচ্ছু মিয়া অভিযোগ করে বলেন, ঠান্ডু মিয়া, তার স্ত্রী, রুবি বেগম, ছেলে রফিক, মুস্তাক, মর্জিনা বেগমসহ আরও চার থেকে জন ব্যক্তি দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সর্জিত হয়ে আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। সেইসঙ্গে বেধড়ক পেটানো হয়। এমনকি ইট দিয়ে আমার স্ত্রী শেফালীর বুকে আঘাত আহত করেন। তাদের সংঘবদ্ধ হামলায় একজন নিহত আর চারজন গুরুতর আহত হয়েছেন বলে দাবি করেন। অপরদিকে ঠান্ডু মিয়ার দাবি, প্রতিপক্ষের সন্ত্রাসী হামলায় তাদের পক্ষের তিন-থেকে চারজন ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছেন বলে জানান তিনি।

শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতাউর রহমান খোন্দকার ঘটনার বলেন, সংঘর্ষে নিহত ওই গৃহবধূর লাশের ময়না তদন্ত বগুড়ায় শজিমেক হাসপাতালে সম্পন্ন করা হয়েছে। পরে লাশটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। উক্ত ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তবে হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।

Check Also

কেল্লাপোশী মেলায় অবৈধভাবে খাজনা আদায় চলছেই

ষ্টাফ রির্পোটার: বগুড়ার শেরপুরে কেল্লাপোষী মেলায় কোনো প্রকার টোল বা খাজনা আদায় করা যাবে না-মর্মে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

11 − nine =

Contact Us