সর্বশেষ সংবাদ
Home / স্বাস্থ্য / করোনা টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে যা করণীয়

করোনা টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে যা করণীয়

শেরপুর ডেস্কঃ করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) এর টিকা নেয়ার পর সামান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে। টিকা শরীরের সাথে একটি কৌশলের আশ্রয় নেয়। টিকা নেয়ার পর শরীর মনে করে যে সে করোনাভাইরাসের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছে। এই টিকা তখন সংক্রমণের সাথে লড়াই করার জন্য আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধী স্বাভাবিক ব্যবস্থাকে জাগিয়ে তোলে।

প্রথম প্রতিক্রিয়া হয় বাহুতে যেখানে টিকাটি দেয়া হয়। ফুলে যায় এবং ব্যথা হয়। কারণ তখন রোগ প্রতিরোধী ব্যবস্থা সক্রিয় হয়ে ওঠে। তখন দেহের বাকি অংশে এর প্রভাব পড়তে পারে এবং দেখা দিতে পারে ফ্লুর মতো উপসর্গ। (জ্বর, ঠাণ্ডা লাগা এবং বমি বমি ভাব।) এটা কাজ করে রাসায়নিক ফায়ার অ্যালার্মের মতো।

টিকা দেয়ার পর শরীরের ভেতরে কিছু রাসায়নিক প্রবাহিত হতে শুরু করে যা দেহকে সতর্ক করে দেয় বলে যে কোথাও সমস্যা দেখা দিয়েছে। করোনা টিকা নেয়ার পর জ্বর, হাতে ব্যথা, ক্লান্তি, পায়ে ব্যথা হওয়া খুবই স্বাভাবিক একটি বিষয়। অনেকেরই এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলো দেখা যায়।

বেশির ভাগ মানুষই প্যারাসিটামল খেয়ে এবং বরফ লাগিয়ে এগুলোর মোকাবিলা করছেন। কিন্তু এমনও অনেকে রয়েছেন, যারা বিশ্বাস করেন, অনেক পরিমাণ পানি খেলেই এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াগুলো ঠেকানো যাবে। তবে টিকাগ্রহণের আগে এবং পরে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা। যাতে শরীরে কোনো মতেই ডিহাইড্রেশন না হয়ে যায়।

টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নির্ভর করে আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উপর। শরীরে কোনো রকম প্যাথোজেন ঢুকলে যেমন আমাদের প্রতিরোধশক্তি জেগে ওঠে, টিকা নেয়ার পরও তাই হয়। প্রতিরোধশক্তি কার্যকর হয়ে উঠলে শরীরে জ্বর, গায়ে ব্যথা, ক্লান্তির মতো প্রতিক্রিয়া হওয়াটাই স্বাভাবিক। যেহেতু কোনও শরীরের বাইরের কারণে এই প্রতিক্রিয়াগুলো নির্ভর করে না, তাই এগুলো আটকানোর উপায় খুব একটা নেই।

অসুস্থ হলে শরীর থেকে অনেক পরিমাণে তরল বেরিয়ে যায়। তাই বেশি পরিমাণে পানি খেলে সুস্থ হওয়ার প্রক্রিয়া তাড়াতাড়ি হতে পারে। কিন্তু শুধু বেশি পরিমাণে পানি খেলেই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থেকে রেহাই মিলবে, এমন কোনও বৈজ্ঞানিক প্রমাণ এখনও মেলেনি। কিন্তু পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি না খেলে ডিহাইড্রেশন হতে পারে। যার ফলে শরীরের ব্যথা-বেদনা অনেকটাই বেড়ে যায়।

হাতে টিকার জায়গায় বেশি ব্যথা হলে পরিষ্কার কাপড় ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে প্রয়োগ করুন। হাতের হালকা ব্যায়াম করতে পারেন। খুব বেশি ব্যথা বা জ্বর হলে প্যারাসিটামল–জাতীয় ওষুধ এসব উপসর্গ নিরাময়ের জন্য যথেষ্ট। তবে পাতলা জামা পরিধান করুন। অ্যালার্জি দেখা দিলে অ্যান্টি-হিস্টামিন জাতীয় ওষুধ সেবন করা যেতে পারে।

Check Also

স্কুলে স্কুলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত

শেরপুর ডেস্কঃ এতদিন একটি কেন্দ্রে আশপাশের অন্তত পাঁচটি স্কুলের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হচ্ছিল। এতে শিক্ষার্থীদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

fourteen − 12 =

Contact Us