Home / ইতিহাস ও ঐতিহ্য / বাজেটের ইতিকথা

বাজেটের ইতিকথা

শেরপুর ডেস্কঃ বাজেট একটি ইংরেজি শব্দ যা বাংলাদেশের সরকারি বিভিন্ন নথিপত্রে ব্যবহৃত হয় বাজেট হিসেবেই। মানে বাজেটের যুত্সই কোনো বাংলা চোখে পড়েনি। আর অফিসিয়াল ভাষায় শব্দটি বাজেট নামেই রয়েছে সরকারি ওয়েবসাইটে।

বাজেট শব্দটি এসেছে ফরাসি শব্দ বোওগেট থেকে। যার অর্থ চামড়ার ব্যাগ। ইতিহাস ঘেঁটে দেখা যায় ১৭২০ সালে ব্রিটেনের পার্লামেন্টে প্রথম জাতীয় বাজেট ও রাজস্বনীতি উত্থাপন করেন স্যার রবার্ট ওয়ালপোল। এর ঠিক ১৩ বছর পর ওয়ালপোল সরকারের করের বোঝা কমাতে তার রাজস্ব পরিকল্পনায় বিভিন্ন ধরনের পণ্যের (ওয়াইন, তামাক) ওপর আবগারি শুল্ক ধার্য করার প্রস্তাব করেন। এতে সাধারণ জনগণ ক্ষুব্ধ হয়ে পড়ে যে উইগ পিয়ার উইলিয়াম ‘দ্য বাজেট ওপেন অর অ্যান আনসার টু এ প্যামফলেট’ নামে একটি পুস্তিকা লিখে ফেলেন। সেবারই প্রথম সরকারের রাজস্বনীতিতে বাজেট শব্দটি ব্যবহার হয়েছে। কিন্তু, বাজেটের আনুষ্ঠানিক রূপ পায় ১৭৬০ সালে।

ভারতীয় উপমহাদেশে বাজেট
১৮৫৭ সালে সারা ভারতবর্ষে সিপাহী বিদ্রোহ ছড়িয়ে পড়ে আর তখনই ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির শাসন ব্যবস্থা রদ হয়। ভারতের ভাগ্যের চাবিকাঠি চলে যায় ইংল্যান্ডের রানি ভিক্টোরিয়ার কাছে। ১৮৫৮ সালে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে পাস হয় ‘ভারত শাসন আইন’। রানির হয়ে ভারতের শাসনভার দেখাশোনার দায়িত্ব দেওয়া হয় ভাইসরয়কে। ভাইসরয়কে পরামর্শ দেওয়ার জন্য তৈরি হয় ইন্ডিয়ান কাউন্সিল। তারই অর্থসংক্রান্ত বিষয় দেখাশোনা করতেন জেমস উইলসন।

১৮৬০ সালের ৭ এপ্রিল জেমস উইলসন কলকাতায় ভারতে ব্রিটিশ সরকারের প্রথম বাজেট বক্তৃতা দেন এবং ১৮৬০-৬১ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেন।

এই উপমহাদেশে উইলসনই প্রথম গণতান্ত্রিক ওয়েস্ট মিনস্টার টাইপের সরকার পদ্ধতির আওতায় সরকারের আয়-ব্যয় ব্যবস্থাপনার বাজেট পেশ করেন, যা আজও বিদ্যমান বাংলাদেশ এবং ভারতে। সম্রাট আকবরের প্রবর্তিত ফসলি সনের আদলে তখন এপ্রিল-মার্চকে অর্থবছর নির্ধারণ করা হয়। তিনিই প্রথম বাজেটে আধুনিক আয়কর ব্যবস্থা প্রবর্তন করেন। এর আগে এ দেশে বিভিন্ন প্রকার কর বা খাজনা প্রকৃতির রাজস্ব আয়ের ব্যবস্থা ছিলো।

উইলসনের আরেকটি বিখ্যাত পরিচয়- তিনি ছিলেন লন্ডনের প্রভাবশালী ‘ইকোনমিস্ট’ পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা। ১৮৫৩-এ প্রতিষ্ঠা করেন চার্টার্ড ব্যাংক অব ইন্ডিয়া। এই ব্যাংক ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও চীনে শাখা খোলে। পরবর্তীতে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের সঙ্গে জুড়ে গিয়ে তৈরি হয় স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক।

১৮৫৯-এর নভেম্বরে ভারতে এসে ১৮৬০-এর এপ্রিলে বাজেট পেশের পরপরই ডায়রিয়াতে ভুগে তিনি মারা যান কলকাতাতেই।

পাকিস্তান আমলে বাজেট: পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর এ দেশের প্রথম বাজেট মুসলিম লীগ সরকার উপস্থাপন করে। সে সময় অর্থবছর এপ্রিল থেকে শুরু হতো। যদিও পরে পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় সরকার জুলাই-জুন অর্থবছর ঘোষণা করে।
১৯৪৭ সালের দেশভাগের পর ১৯৪৮ সালের ১৬ মার্চ পূর্ববাংলা প্রদেশে প্রাদেশিক পরিষদের অধিবেশন বসে জগন্নাথ হলের হলঘরে, যেটি ১৯৮৫ সালের ১৫ অক্টোবর ধসে পড়ে যায়।
১৯৪৮-৪৯ সালের প্রথম বাজেট পেশ করেন হামিদুল হক চৌধুরী। ওই অর্থবছরে ৪ কোটি ৩৪ লাখ টাকা বাজেট ঘাটতি ছিলো। ব্যয় বিবেচনায় ওই বাজেটের আকার ছিলো সাড়ে ৪১ কোটি টাকা। পরিসংখ্যান বলছে, রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য ছিলো ১১ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। ঋণ খাতে আদায় ২৪ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। তবে রাজস্ব খাতে ব্যয় ধরা হয় ১২ কোটি সাড়ে ৮ লাখ টাকা। আর পরিশোধে ব্যয় ১৯ কোটি ৭ লাখ টাকা।

স্বাধীন বাংলাদেশে বাজেট: স্বাধীন দেশের প্রথম অর্থমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ প্রথম বাজেট উপস্থাপন করেন। তাজউদ্দীন আহমদ ১৯৭২ সালের ৩০ জুন একই সঙ্গে ১৯৭১-৭২ ও ১৯৭২-৭৩ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা করেছিলেন।

তাজউদ্দীন স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম বাজেট দিয়েছিলেন; সেই বাজেটের আকার ছিলো ৭৮৬ কোটি টাকা। বর্তমান অর্থমন্ত্রীর নতুন অর্থবছরের বাজেট ৫ লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকার বেশি।

বাংলাদেশের বাজেট উপস্থাপনে একটি স্থানে এখনও অনন্য তাজউদ্দীন আহমদ। কারণ তিনি ছিলেন দেশের একমাত্র পূর্ণাঙ্গ রাজনীতিবিদ যিনি সংসদে বাজেট উপস্থাপন করেছেন।

Check Also

বিশ্ব বাবা দিবসের ইতিকথা

শেরপুর ডেস্কঃ পরম নির্ভরতার প্রতীক বাবা। ভরসা ও ছায়ার নাম বাবা। বাবা শাশ্বত, চির আপন। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one + 3 =

Contact Us