Home / বগুড়ার খবর / শাহজাহানপুর / শাজাহানপুরে মাদ্রাসার নৈশ প্রহরী হত্যাকাণ্ডে সাংবাদিক গ্রেফতার

শাজাহানপুরে মাদ্রাসার নৈশ প্রহরী হত্যাকাণ্ডে সাংবাদিক গ্রেফতার

শেরপুর ডেস্কঃ বগুড়ার শাজাহানপুরে মাদ্রাসার নৈশ প্রহরী জয়নাল আবেদীনকে (৭০) গলা কেটে হত্যার ঘটনায় তানভিরুল ইসলাম (২১) নামের এক সাংবাদিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শাজাহানপুর থানা পুলিশ শুক্রবার বিকেলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রথমে আটক করে। পরে ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়৷

তিনি ওই উপজেলার সাজাপুর উত্তরপাড়ার মিঠু মিয়ার ছেলে ও ঢাকা থেকে প্রকাশিত কথিত দৈনিক মাতৃভূমির খবর নামের একটি পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল ও মিডিয়া মুখপাত্র) ফয়সাল মাহমুদ।

পুলিশ সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে সাংবাদিক তানভিরুল গাঁজা সেবন করার জন্য মাদ্রাসার বারান্দায় যায়৷ সেই সময় নিহত জয়নাল তাকে বাঁধা দিলে তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এরপর ওই নৈশ প্রহরী তার ঘড়ে ঘুমাতে গেলে তানভিরুল জয়নালকে পেঁটে ও গলায় ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে পালিয়ে যায়৷

গ্রেফতারকৃত তানভিরুল ইসলাম পুলিশকে জানিয়েছে, সে মাঝে মধ্যেই সুজাবাদ উত্তরপাড়া দাখিল মাদরাসার মাঠে গাঁজা সেবন করতেন। বিষয়টি নৈশ্য প্রহরী জয়নাল আবেদীনের নজরে আসলে তাকে নিষেধ করে আসছিলেন। গত বৃহস্পতিবার (২৭ মে) রাত সাড়ে ৯টার দিকে আবারও মাদরাসার ভিতরে গাঁজা সেবন করছিলেন তানভিরুল। বিষয়টি টের পেয়ে নৈশ প্রহরী তাকে গালমন্দ করে। এতেও কথা না শুনায় দুজনের মধ্যে ধাক্কধাক্কির ঘটনা ঘটে। পরে নৈশ প্রহরী জয়নাল আবেদীন ঘুমাতে গেলে সঙ্গে তানভির ঘরে ঢুকে নৈশ প্রহরীর পেটে ছুরিকাঘাত করে এবং ছুরি দিয়ে গলা কেটে দেয়। এরপর মাদরাসার পার্শ্বে পুকুরে চাকু ফেলে দিয়ে পুকুরের পানিতে হাত-মুখ পরিষ্কার করে বাড়িতে যায়। বাড়ি গিয়ে গোসল করে ঘুমিয়ে পড়ে।

পরদিন শুক্রবার (২৮ মে) নৈশ প্রহরী খুনের খবর জানাজানি হলে গ্রামের লোকজনের সাথে মাদরাসায় মরদেহ দেখতে যান তানভির। তিনি নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে গলায় আইডি কার্ড ঝুলিয়ে মরদেহের ভিডিও ধারণ শুরু করেন। সেখানে উপস্থিত অন্যান্য সাংবাদিকরা তথ্য নিয়ে চলে গেলেও তানভির পুলিশের পিছু ছাড়ছিলেন না। তিনি সকল কর্মকান্ড ভিডিও ধারণ করছিলেন। বেলা ৩টার দিকে পুলিশের আরেকটি দল মাদরাসা চত্বরে গেলে তানভির সেখানে উপস্থিত হয়ে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে এলাকার কয়েকজন মাদকসেবীর নাম ঠিকানা দিয়ে পুলিশকে জানায় তারা হত্যার সাথে জড়িত থাকতে পারে। তানভীরের অতি উৎসাহী আচরণে পুলিশের সন্দেহ হলে তাকে আটক করা হয়। পাশাপাশি তার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী পুলিশ আরও তিন যুবককে আটক করেন। রাতে পুুলিশ চারজনকে পৃথকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তানভীর হত্যার সাথে নিজে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার রাতে বগুড়ার শাজাহানপুরে সুজাবাদ উত্তরপাড়া দাখিল মাদ্রাসার নৈশপ্রহরী খুন হয়।

Check Also

শাজাহানপুরে নবনির্বাচিত ইউপি সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠিত

 মিজানুর রহমান মিলন, শাজাহানপুর(বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে নবনির্বাচিত সদস্যদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + fourteen =

Contact Us