Home / বগুড়ার খবর / সারিয়াকান্দি / ধুনটে বোন জামাইয়ের বিরুদ্ধে প্রতারনা মামলা, মহরানার দাবিতে স্ত্রী আদালতে

ধুনটে বোন জামাইয়ের বিরুদ্ধে প্রতারনা মামলা, মহরানার দাবিতে স্ত্রী আদালতে

এম.এ.রাশেদ ঃ বগুড়ার ধুনট উপজেলার ছোট চাপড়া গ্রামের তছলিম উদ্দিনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলমের (বোন জামাই) বিরুদ্ধে জেলা বগুড়ার বিজ্ঞ সিনিঃ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সারিয়াকান্দি আমলী আদালতে প্রতারনা মামলা করেছে সারিয়াকান্দি উপজেলার চিলাপাড়া গ্রামের মৃত মনতেজার রহমানের ছেলে মাহাবুর রহমান। অপরদিকে তার বোন বাদি হয়ে জেলা বগুড়ার সারিয়াকান্দি পারিবারিক জজ আদালতে স্বামী জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে মোহরানা ও খোরপোষের দাবিতে একটি মামলা করে।

প্রতারনা মামলার নথি ও বাদি মাহাবুর রহমান সুত্রে জানা যায়, প্রায় ১৮ বছর আগে সারিয়াকান্দি উপজেলার চিলাপাড়া গ্রামের মৃত মনতেজার রহমানের মেয়ে সালেহা খাতুনকে বিয়ে করে ধুনট উপজেলার ছোট চাপড়া গ্রামের তছলিম উদ্দিনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম। তাদের দাম্পত্য জীবনে ৩ সন্তানের জন্ম হয়। জাহাঙ্গীর আলম সৌদি আরব গমনের ইচ্ছা পোষন করে স্ত্রী সালেহা খাতুনের মাধ্যমে যৌতুকের দাবি করে। বোনের সুখের কথা ভেবে ভাই মাহাবুর রহমান এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা বোন জামাইকে প্রদান করে। বোন জামাই সৌদি আরব গমন করার কিছুদিন পর দেশে ফিরে আসে। পরবর্তিতে সে আবারো কাতার গমনের জন্য তার স্ত্রীর ভাই মাহাবুর রহমানের কাছে তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা কর্জ চায়। সে বোনের সুখ ও বোন জামাইয়ের প্রতি বিশ্বাষ রেখে ২০১৪ সালের ১০ ডিসেম্বার কয়েক জনকে স্বাক্ষী করে তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা কর্জ হিসেবে প্রদান করে। বোন জামাই জাহাঙ্গীর আলম ২০১৫ সালের আগষ্ট মাসে ছুটিতে বাড়িতে আসলে কর্জকৃত টাকা ফেরত চায় মাহাবুর রহমান। জাহাঙ্গীর আলম ২০১৬ সালের ১ মার্চের মধ্যে টাকা ফেরত দেওয়ার অঙ্গিকার করে ২০১৫ সালের ২৯ আগষ্ট তারিখে কছ-২৮৭২২০০ ক্রমিকে একশত টাকা মূল্যের ১টি ও কঘ-৫৬৯৪৩৩৩ ক্রমিকে পঞ্চাশ টাকা মূল্যের ১টি মোট দুটি ষ্ট্যাম্পে লিখিত কর্জ নামায় সহি স্বাক্ষর করে দিয়ে পুনরায় কাতার গমন করে। ষ্ট্যাম্পে লিখিত নির্ধারিত সময় অতিবাহিত হবার পর জাহাঙ্গীর আলমের নিকট টাকা ফেরত চাইলে সে নানা অজুহাত দেখিয়ে তালবাহানা করতে থাকে। গত ২০১৯ সালের ৮ আগষ্ট মাসে জাহাঙ্গীর আলম ছুটিতে বাড়ি আসে। তার সাথে যোগাযোগ করা হলে ১০ আগষ্ট শনিবার সে শশুরবাড়ী তথা তার স্ত্রীর ভাই মাহাবুরের বাড়ি যায়। সেখানে ওই দিন বিকেলে অঙ্গিকার নামার শর্ত অনুযায়ী জাহাঙ্গীর আলমের কাছে কর্জের তিন লাখ পঞ্চাশ হাজার টাকা ফেতর চায় মাহাবুর রহমান। সে রাগান্নিত হয়ে টাকা ফেরত দিবে না মর্মে ছাফ জানিয়া দেয়। এ ঘটনায় জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী সালেহা খাতুনের ভাই মাহাবুর রহমান বাদি হয়ে জাহাঙ্গীর আলমকে আসামি করে জেলা বগুড়ার বিজ্ঞ সিনিঃ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সারিয়াকান্দি আমলী আদালতে মামলা দায়ের করে। যার মামলা নং ১০৭/সি-১৯ সারিয়াকান্দি।

অপরদিকে মাহবুর রহমানের বোন ছালেহা খাতুন বাদি হয়ে জেলা বগুড়ার সারিয়াকান্দি পারিবারিক জজ আদালতে স্বামী জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে মোহরানা ও খোরপোষের দাবিতে একটি মামলা করে। মামালার নথি ও বাদি সুত্রে জানা যায়, বিবাহের পর দাম্পত্য জীবনে ২০০৪ সালের ২০ ডিসেম্বর তারিখে সানাউল ইসলাম শুভ, ২০০৬ সালের ১৫ জানুয়ারী তারিখে সুমাইয়া আক্তার ও ২০১৫ সালের ২৮ মার্চ জিনিয়া নামের তিন সন্তানের জন্ম হয়। সৌদি আরব গমেন জন্য তার স্ত্রীর ভাইয়ের কাছ থেকে এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা নেয়। পরবর্তিতে সে সৌদি আরব থেকে ফিরে পুনরায় কাতার যাওয়ার জন্য আবারও তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা নেন স্ত্রী ছালেহার ভাই মাহাবুর রহমানের থেকে। সে কাতার গমন করার পর কাতারে থাকা কালীন সময়ে জনৈক তিথি নামের একজনের সাথে পরকিয়া সম্পর্ক করে এবং ছালেহাকে মৌখিক তালাক প্রদান করে। পরবর্তিতে জাহাঙ্গীর আলম দেশে আসলে প্রথম স্ত্রীর অনুমতি না নিয়ে একই গ্রামের জনৈক তিথিকে বিবাহ করে। এ বিয়ের কথা গোপন করে স্ত্রী ছালেহাকে শারিরিক নির্যাতন করে এবং বাড়ি থেকে বের করে দেয়। ছালেহা খাতুন তিন সন্তান দিয়ে ভাই মাহাবুর রহমানের বাড়ি যায়। সেখানে থেকে জাহাঙ্গীরের সাথে যোগাযোগ করা হলে সে কোন খোজ খবর নেয়নি এবং কোন রকম ভরন পোষনও প্রদান করেন নাই। সে মহরানা ও খোরপোষের খরচ দিতে অস্বীকার করে।

উল্লেখ্য জাহাঙ্গীর আলম ও ছালেহার বিবাহ রেজিষ্টারে চার লক্ষ টাকা মহরানার মধ্যে ১ হাজার টাকা নগদ অবশিষ্ট টাকা বাকি রাখিয়া বিবাহ হয়। ছালেহা খাতুন মহরানার অবশিষ্ট তিন লক্ষ নিরানব্বই হাজার টাকা সহ খোরপোষসহ জেলা বগুড়ার সারিয়াকান্দি পারিবারিক জজ আদালতে স্বামী জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে মোহরানা ও খোরপোষের সাত লক্ষ নিরানব্বই হাজার টাকার দাবিতে একটি মামলা করে। যার মোকাদ্দমা নং ৪২/১৯ পারিবারিক।

Check Also

সারিয়াকান্দিতে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ

মোঃ ফরহাদ হোসেন, বগুড়া নারুলী ওয়েসিস কাজলা ছাত্রাবাসের পক্ষ থেকে আল আমিন ও শিহাব উদ্দিনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × one =