Home / খেলাধুলা / শীর্ষস্থান ফিরে পেলেন মুস্তাফিজ

শীর্ষস্থান ফিরে পেলেন মুস্তাফিজ

শেরপুর ডেস্ক: অনেকটা সবাইকে অবাক করে দিয়েই ফর্মহীন বাংলাদেশী পেসার মুস্তাফিজুর রহমানকে আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে খেলায় ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস। সেই থেকে আর পিছে ফিরে দেখতে হয়নি টাইগারদের এই কাটার মাস্টারের। প্রথম তিন ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়ে আইপিএলের সেরা উইকেট শিকারীও হয়েছিলেন তবে চতুর্থ ম্যাচ না খেলায় সেই খেতাব হারান। এবার পঞ্চম ম্যাচে ঠিকই উইকেট শিকারীর তালিকার শীর্ষস্থান নিজের করে নিলেন ফিজ।

চেন্নাইয়ের হয়ে আইপিএলের প্রথম তিন ম্যাচ খেলেই ভিসা সংক্রান্ত কাজে দেশে ফিরতে হয় মুস্তাফিজুর রহমানকে। ফিজের অনুপস্থিতে চেন্নাই হেরে যায় হায়দরাবাদের বিপক্ষে। এদিকে মুস্তাফিজও হারান সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীর পার্পল ক্লাব। এরপর সোমবার (৮ মার্চ) কলকাতার বিপক্ষে চেন্নাইয়ের একাদশে ফিরলেন মুস্তাফিজ। এসেই নিজের সহজাত বোলিংয়ে ফিরে পেলেন হারানো পার্পল ক্যাপও।

এম চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে দিনের একমাত্র ম্যাচে কলকাতাকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে বাজিমাত করেন চেন্নাই অধিনায়ক ঋতুরাজ গায়কোয়াড়। কলকাতাকে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৩৭ রানের বেশি করতে দেয়নি মুস্তাফিজ-জাদেজারা। এক ম্যাচ পর দলে ফিরে দুর্দান্ত বোলিংও করেছেন মুস্তাফিজ। ৪ ওভারে বোলিংয় মাত্র ২২ রান দিয়ে শিকার করেছেন ২ উইকেট। এতে করে আবারো আসরের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীর তালিকার চুঁড়োয় উঠলেন তিনি।

এম চিদাম্বরমের পিচে খেলা দুই ম্যাচেই মস্তিাফিজ ছিলেন কার্যকরী। আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে মাত্র ২৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট শিকার করেন তিনি। দলকে জিতিয়ে পান ম্যাচসেরার খেতাবও।

পরের ম্যাচে গুজরাট টাইটান্সের বিপক্ষেও ৩০ রান দিয়ে ২ উইকেট শিকার করেন মুস্তাফিজ। টানা উইকেট শিকার করে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির পার্পল ক্যাপও দখলে রাখেন।

তবে দিল্লির বিপক্ষে তৃতীয় ম্যাচটাতে ছন্নছাড়া ছিলেন মুস্তাফিজ। ফলে ৪ ওভারে ৪৭ রান দিয়ে শিকার করেন মাত্র ১ উইকেট।

এরপর মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার ভিসা কার্যক্রম সারতে জরুরী ভিত্তিতে দেশে ফেরেন ফিজ। ফলে সানরাইজার্সের বিপক্ষে চেন্নাইয়ের ম্যাচে ছিলেন না তিনি। দল হারার সঙ্গে পার্পল ক্যাপও হাতছাড়া হয়ে যায় কাটার মাস্টারের। তবে কলকাতার সাথে হওয়া চেন্নাইয়ের পরবর্তী ম্যাচেই আবার পার্পল ক্যাপ পাওয়া নিশ্চিত করেন ফিজ।

ম্যাচের শুরু থেকে দারুণ বোলিং করতে থাকা ফিজ প্রথম দুই ওভারে দেন ১২ রান। নিজের করা তৃতীয় ওভারে পেতে পারতেন উইকেট। তবে ধোনি ক্যাচ মিস করায় অল্পের জন্য আন্দ্রে রাসেলের উইকেটটি পাননি তিনি।

তবে নিজের এবং দলের শেষ ওভারে বাজিমাত করেন মুস্তাফিজ। শেষ ওভারের প্রথম বলেই কলকাতার অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ারকে রবীন্দ্র জাদেজার ক্যাচে পরিণত করেন। একই ওভারের চতুর্থ বলে মিচেল স্টার্কও রাচিন রবীন্দ্রর হাতে ধরা পড়েন। শেশ ওভারে দুই উইকেট নিয়ে তিনি দেন মাত্র ২ রান।

এবারের আইপিএলে ৪ ম্যাচেই মুস্তাফিজের শিকার ৯ উইকেট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর ঝুলিতে আছে ৮ উইকেট।

Check Also

অবশেষে বিশ্বকাপের দল ঘোষণা করল বাংলাদেশ

  শেরপুর ডেস্ক: সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা করা হয়েছে। ইনজুরির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen − eight =

Contact Us