ঘরের মাঠে জিততে চান তপু বর্মন
শেরপুর ডেস্ক: আগামী মঙ্গলবার ফিলিস্তিনের বিপক্ষে বাংলাদেশের ফিরতি লেগের ম্যাচ কিংসের মাঠে। ঘরের মাঠে জেতার কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ দলের ডিফেন্ডার তপু বর্মন। তিনি জানিয়েছেন ১-০ গোলে জেতার টার্গেটটাই আছে।’ কুয়েতের মাঠে ফিলিস্তিনের বিপক্ষে ৫-০ গোলে হেরে ঢাকায় ফিরেছে বাংলাদেশ ফুটবল দল। শুক্রবার রাতে ঢাকায় ফিরে গতকাল বিকালে অনুশীলনে নেমেছেন জামাল ভূঁইয়া, তপু বর্মন, মিতুল মারমা, সোহেল রানারা। দলের সিনিয়র ফুটবলার তপু বর্মন ঘরের মাঠের সুবিধা কাজে লাগাতে চান।

৫-০ গোলের হারের কথা কল্পনাও করেননি তপুরা। এখন যেটা হয়েছে সেটা নিয়ে ভাবতে চান না। দেশের মাটিতে হোম ভেন্যুতে খেলা। যতটুকু সুবিধা পাওয়া যায় তার সবটুকু কাজে লাগাতে চান তপু। ‘৫-০ তে হার আমাদের জন্য খুবই হতাশাজনক। এখান থেকে বেরিয়ে আসতে চাই। আমাদের দেশের মানুষরাও একটা চিন্তা করেনি-বললেন তপু। তপুও স্বীকার করে নিয়েছেন, দলের রক্ষণের দায় ছিল। ৪২ মিনিট পর্যন্ত ভালো খেললেও পরের টপাটপ গোল হজম করে। তপু বললেন, ‘টিম ডিফেন্ডিংটা হয়তো নড়বড়ে ছিল। এটা আমাদের জন্য মাইনাস পয়েন্ট ছিল। হঠাৎ গোল হজম করায় মোরাল ডাউন হয়েছে।’

এই একটা ম্যাচের জন্য বাংলাদেশ দলকে ১০ দিন সৌদি আরবে রেখে কন্ডিশনাল ক্যাম্প করানো হয়েছে। সৌদি থেকে কুয়েতে খেলতে গিয়েছিল বাংলাদেশ। এত খরচ এত সুযোগ-সুবিধা দিয়ে দলটাকে তৈরি করার পরও বাংলাদেশের ঘাটতি কোথায় ছিল? তপু বললেন, ‘স্ট্যামিনায় কোনো ঘাটতি ছিল না। আমরা সুযোগ তৈরি করেছিলাম। যদি মনযোগটা একটু ভালো থাকত হয়তো ওভারকাম করতে পারতাম। হয়তো হারতাম। কিন্তু এত গোল হতো না।’

ফিলিস্তিনের আক্রমণে ছয় জন, সেখানে বাংলাদেশের রক্ষণে চার জন। এটাকে কঠিন মনে করছেন তপু। ডিফেন্ডারদের মধ্যে সমন্বয় ছিল না। সেটাকেই দুষেছেন তপু। ফিলিস্তিনের বিপক্ষে জুনিয়র সোহেল রানা একাদেশ খেলেছেন। গোল মিস করেছেন। সবচেয়ে সহজ সুযোগ ছিল সেটি হাতছাড়া করেছেন তিনি। গোল মিসের কথাটা সোহেল রানার মুখে থেকে শোনা গেল না। রানিং বলে শট করে বাইরে মেরে নষ্ট করেছেন সোহেল রানা। তারও একটা বক্তব্য থাকতে পারে। কিন্তু কোচ হ্যাভিয়ের কাবরেরা সেটি না করে যিনি খেলেননি তাকে পাঠিয়েছিলেন সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে। তার বদলে সিনিয়র সোহেল রানা এবং তপু বর্মনকে পাঠিয়েছিলেন।

অনুশীলন হয় কিংসের মাঠে। ফুটবল বিশ্লেষকরা দায়ী করেছে রক্ষণকে। সরাসরি না বললেও দলের সিনিয়র ফুটবলার ডিফেন্ডার তপু বর্মন তার রক্ষণকেই দায়ী করেছেন। তপু বর্মন, বিশ্বনাথ ঘোষ, সাদ উদ্দিন ও ইসা ফয়সাল ঠিকঠাক মতো আটকাতেই পারেননি ফিলিস্তিনের ফরোয়ার্ডদের। আর কোচ হ্যাভিয়ের কাবরেরা বলছেন, ডিফেন্ডাররা ভালো খেলেছেন। কেন ৫ গোল হজম করল সেটি চিন্তার বিষয়। হ্যাভিয়ের বলেছেন, ‘যেসব ভুলের কারণে ম্যাচের এই রেজাল্ট হয়েছে সেটি ঠিক করতে হবে।’

ঢাকায় আগামী ২৬ জানুয়ারি বিশ্বকাপ ফুটবল ২০২৬ বাছাই এবং এশিয়ান কাপ ২০২৭ বাছাই ম্যাচ ঢাকায়। বাংলাদেশ এবং ফিলিস্তিন ফিরতি ম্যাচে মুখোমুখি হবে। ফিলিস্তিন ফুটবল দল গতকাল সকালে ঢাকায় এসেছে। বাংলাদেশে এসেছেন ফিলিস্তিনি ক্রীড়ামন্ত্রী দারজাল। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ দেখতে এসেছেন বলে দলের একটি সূত্রে জানা গেছে। ফিলিস্তিন ফুটবল দল গতকাল হোটেলেই অবস্থান করেছে। বিমানবন্দর সড়কের পাশেই একটি হোটেলে অবস্থান করছে। সেখান থেকে খুব কাছে উত্তরায় পুলিশের মাঠে আজ বিকালে অনুশীলনে নামবে বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ৫-০ গোলে জয়ী ফিলিস্তিন ফুটবল দল।

Check Also

আইপিএলে রেকর্ড গড়লো হায়দরাবাদ

শেরপুর ডেস্ক: টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর অধিনায়ক ফ্যাফ ডুপ্লেসি। প্রথমে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight − 4 =

Contact Us