সর্বশেষ সংবাদ
Home / বগুড়ার খবর / শেরপুরে আদিবাসী ও ভূমি রক্ষা সংগ্রাম কমিটির মানববন্ধন

শেরপুরে আদিবাসী ও ভূমি রক্ষা সংগ্রাম কমিটির মানববন্ধন

শেরপুর ডেস্ক: বগুড়ার শেরপুরে আদিবাসী ক্ষেতমজুর সমিতি ও ভূমি রক্ষা সংগ্রাম কমিটির যৌথ উদ্যোগে মানববন্ধন, স্মারকলিপি পেশ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। রবিবার (১০মার্চ) দুপুর থেকে শুরু হয়ে বিকেল পর্যন্ত শহরের স্থানীয় বাসস্ট্যান্ড ও উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।

আদিবাসী ক্ষেতমজুর ও ভূমি রক্ষা সংগ্রাম কমিটির সভাপতি কমল সিংয়ের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন-বাংলাদেশ আদিবাসী ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেবেকা সরেন। তিনি তাঁর বক্তৃতায় বলেন, স্বাধীনতা সংগ্রামের সময় হাজার হাজার আদিবাসী লাঠি ও তীর ধনুক নিয়ে রংপুর ক্যান্টনমেন্ট ঘেরাও করেছিলেন। সেদিন অনেক মানুষ জীবন দিয়েছেন। আমরা শান্তিপ্রিয় হলেও অধিকারের জন্য জীবন দিতে পারি। তিনি অভিযোগ করে বলেন, শেরপুর উপজেলার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী জনগণের ওপর দফায় দফায় হামলা হয়েছে। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসসকে জানিয়ে সহায়তা চেয়েও কোনো সহায়তা পাওয়া যায়নি। ঘটনা জেনেও স্থানীয় প্রশাসন রহস্যজনক কারণে নিশ্চুপ রয়েছেন। তবে আগামী ১৫দিনের মধ্যে সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার ও ঘটনার সুষ্ঠু সমাধান না হলে সারাদেশে প্রতিরোধ গড়ে তোলার ঘোষণা দেন তিনি।

কর্মসূচিতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ আদিবাসী ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা ইসমাইল হোসেন, আদিবাসী ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্রীকান্ত মাহাতো, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির বগুড়া জেলা সভাপতি জিন্নাতুল ইসলাম জিন্নাহ, শেরপুর উপজেলা সভাপতি হরিশংকর সাহা প্রমুখ। এর আগে শেরপুরের বাসস্ট্যান্ডে মানববন্ধন করা হয়। পরে অবস্থান কর্মসূচি শেষে শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ভবানীপুর ইউনিয়নে দেড়শ’ বছরের অধিক সময় ধরে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী জনগণ বসবাস করছে। ২০১৭ সাল থেকে এ পর্যন্ত আদিবাসীদের ওপর ২০টির বেশি হামলার ঘটনা ঘটেছে। তাদের ঘরবাড়ি ভাঙচুর, লুটপাট, আবাদি জমি ও পুকুর দখল, সৎকারে ব্যবহৃত শ্মশান ও কালী মন্দির ভাঙচুর এবং শতাধিক নারী-পুরুষ ও শিশুকে গুরুতর আহত করার ঘটনা ঘটেছে। এসব নিয়ে এ পর্যন্ত প্রশাসনের কাছে একাধিক লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে মাত্র তিনটি অভিযোগ মামলা নেওয়া হয়েছে। এদিকে গত ৬ মার্চ আদিবাসী নেতা সন্তোষ কুমার সরকারের বাড়িতে প্রায় ৫ ঘণ্টা ধরে হামলা চালিয়ে ৯বিঘা পুকুরের মাছ লুটে নেয়। এ সময় স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়েও পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ করেন তাঁরা।

Check Also

ধুনটে সিনেমার টিকিটের সঙ্গে বিরিয়ানি ফ্রি

  ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার ধুনট উপজেলা সদরে ঐতিহ্যবাহী ঝংকার সিনেমা হলে ১০০ টাকার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − five =

Contact Us