সর্বশেষ সংবাদ
Home / অপরাধ জগত / তাড়াশে ট্রিপল মার্ডারের ঘটনায় মুল হোতা গ্রেপ্তার

তাড়াশে ট্রিপল মার্ডারের ঘটনায় মুল হোতা গ্রেপ্তার

তাড়াশ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের তাড়াশ পৌর সদরের বারোয়ারি বটতলা বিকাশ চন্দ্র সরকারের নিজ বাড়িতে ট্রিপল মার্ডারের স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি দিয়েছেন নিহতের আপন ভাগ্নে রাজীব কুমার ভৌমিক (৩৫)।

বুধবার (৩১ জানুয়ারি) বিকেলে সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার আরিফুল রহমান মণ্ডল বিপিএম (বার) পিপিএম (বার) এক প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে ঘটনার বিষয়টি গণমাধ্যম কর্মীদের সামনে তুলে ধরেন।

রাজীব কুমার ভৌমিক নিহতের আপন বোন প্রমিলা রানীর ছেলে এবং তার আপন ভাগ্নে। তার বাড়ি জেলার উল্লাপাড়া উপজেলার তেলিপাড়া গ্রামের। সে ওই গ্রামের বিশ্বনাথের ছেলে।

ঘটনার দিন শনিবার (২৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যার পর মামার বাড়িতেই হত্যার পরিকল্পনা করে ভাগ্নে রাজীব। প্রথমে মামী স্বর্ণা রানীর অনুপস্থিতে একমাত্র মামাতো বোন তাড়াশ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী পারমিতা সরকার তুষিকে (১৫) ঘুমন্ত অবস্থায় হাসুয়া দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। এরপর মামী স্বর্ণা রানী সরকার (৪০) দোকান থেকে ঘরে ঢোকার পর রড ও হাসুয়া দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। তার কিছুক্ষণ পর মামা বিকাশ চন্দ্র সরকারকে একই কায়দায় হত্যা করে ঘরে তালা ঝুলিয়ে বাড়ি চলে যায়।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে নিহত স্বর্ণা সরকারের বড় ভাই সুকমল চন্দ্র সাহা তাড়াশ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার দিন সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার বিভিন্ন বাহিনীর ২০ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। পুলিশের একটি চৌকস দল ট্রিপল মার্ডারের সাথে জড়িত ভাগ্নে রাজিব কুমার ভৌমিককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করলে তিনি কি ভাবে কি জন্য পরিবারের সবাইকে হত্যা করেছে তা স্বীকার করে।

রাজিব কুমার ভৌমিক জানান, মামা বিকাশ চন্দ্র সরকারের সাথে মাছের খাদ্যের ব্যবসা করতাম। ব্যবসার জন্য মামা বিকাশের নিকট থেকে ২০ লাখ টাকা ধার নেয়। মামা মূলধনসহ সমুদয় টাকা ফেরত চাইলে তার সাথে সম্পর্কের অবনতি হয়। এর জেরে শনিবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে রাজিব ফোন করে টাকা ফেরত দেয়ার কথা বলে মামার বাসায় যায়।

সন্ধ্যা পূজা শেষ করে মামী কফি আনতে বাজারে গেলে এই সুযোগে মামাত বোন পারমিতা সরকার তুষিকে গলাকেটে হত্যা করেন। মামি কফি নিয়ে বাসায় এলে তাকে রড দিয়ে পিটিয়ে অজ্ঞান করে হাসুয়া দিয়ে গলা কেটে হত্যা নিশ্চিত করে। দু’জনকে হত্যার পর রাজিব মামাকে ফোন করে বাসায় আসতে বলেন। মামা বিকাশ চন্দ্র সরকার বাসায় ঢোকা মাত্রই তাকেও একই কায়দায় হত্যা করেন। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত রড ও হাসুয়া পুলিশ উদ্ধার করেছে।

Check Also

উখিয়ায় ২২ আগ্নেয়াস্ত্রসহ আরসা কমান্ডার উসমান আটক

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিভিন্ন সময়ে সংঘটিত অগ্নিকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী ও নেতৃত্ব …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen + three =

Contact Us