সর্বশেষ সংবাদ
Home / দেশের খবর / যারা জ্বালাও-পোড়াও করেছে তাদের ছাড় নেই: প্রধানমন্ত্রী

যারা জ্বালাও-পোড়াও করেছে তাদের ছাড় নেই: প্রধানমন্ত্রী

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচন বন্ধ করতে যারা জ্বালাও-পোড়াও করেছে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ‘তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এসব ঘটনায় যারা হুকুম দিয়েছে, খুঁজে বের করে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ রবিবার বিকেলে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত মতবিনিময়সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপির আন্দোলন হলো মানুষ পুড়িয়ে মারা। তারা জানে জ্বালাও-পোড়াও। জীবন্ত মানুষগুলোকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে পুড়িয়ে মারা। বাসে আগুন, গাড়িতে আগুন, রেলে আগুন, ২০১৩, ২০১৪, ২০১৫ সালে যা করেছে এখন আবার তা শুরু করেছে।

এই নির্বাচন ঠেকাও আন্দোলন করতে গিয়ে ট্রেনে আগুন দিয়ে মা সন্তানকে পুড়েয়ে মেরেছে। এই দৃশ্য কোনো মানুষ সহ্য করতে পারে না। বিএনপির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যে কারণে তারা যতই চিৎকার করুক তাদের কথায় জনগণ সাড়া দেয়নি। যারা এ ধরনের জঘন্য কাজ করেছে তাদের কোনো ছাড় নাই।

তাদের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নেব। ইতিমধ্যে অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেব, যাতে ভবিষ্যতে আর কেউ যেন মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করা বা এ ধরনের জঘন্য কাজ করতে সাহস না পায়।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিএনপি যতবার নির্বাচন বানচাল করতে চেয়েছে বাংলাদেশের মানুষ তাতে সাড়া দেয়নি। মানুষ কিন্তু তার ভোটটা চুরি করলে সে ঠিকই ধরে নেয়।

দৃষ্টান্ত হচ্ছে ৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচন। খালেদা জিয়া নির্বাচন করেছিল ক্ষমতায় থেকে ১৫ ফেব্রুয়ারির ৯৬ সালে। সেখানে প্রশাসনের সবাইকে নামিয়ে দিয়ে তাঁরা নির্বাচন করেন। কিন্তু সেই নির্বাচনে ভোটার যায়নি। সিল মেরে বাক্স ভরে ভোট নেওয়ার পরেও মাত্র ২১ শতাংশ ভোট হয়েছিল। জনগণ কিন্তু মেনে নেয়নি তাঁর ভোট চুরি। যে কারণে আন্দোলন হয়।’
দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেন, ‘ষড়যন্ত্র চক্রান্ত কখনো শেষ হয় না। এই ষড়যন্ত্রের মোকাবেলা করেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। কোটালীপাড়ায় শক্ত একটা ঘাঁটি আছে বলেই আমি যেকোনো ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে পারি। সেই শক্তি আপনারা দিয়েছেন। টুঙ্গিপাড়া-কোটালীপাড়ার মানুষ আমার বড় শক্তি, বাংলাদেশের মানুষ আমার বড় শক্তি। আগামীতেও বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে।’

খাদ্যপণ্য উৎপাদনের তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ, করোনা ভাইরাসের জিনিসপত্রে দাম বেড়েছে। আবার হামলা শুরু হয়েছে। এ জন্য সামনে আরো দুর্দিন আসতে পারে। আমাদের দেশের মাটি উর্বর। আমাদের মানুষ আছে। এক ইঞ্চি জমিও যেন অনাবাদি না থাকে। সাথে সাথে হাঁস-মুরগি, গরু-ছাগল পালন করতে হবে। আমাদের খাদ্য আমাদের উৎপাদন করতে হবে।’

আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নচিত্র তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বাংলাদেশের কোনো উন্নতি হয়নি। বাংলাদেশের উন্নতি হয়েছে যখন আওয়ামী লীগ সরকারে এসেছে। ৯৬ সালে প্রথম সরকার গঠন করে মানুষের খাদ্যের চাহিদা পূরণ করি। স্বাক্ষরতার হার বৃদ্ধি করি। বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি করাসহ বিভিন্ন উন্নয়ন করি। ২০০১ আসতে পারিনি। সেটাও একটা চক্রান্ত ছিল। তখন বিএনপির দুঃশাসন, দুর্নীতি, লুটপাট, মানি লন্ডারিং, গ্রেনেড হামলা, বোমা হামলার কারণে জনগণ তাদের ওপর আস্থা হারায়। ২০০৮-এর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসে। এর পর থেকে ধারাবাহিকভাবে আওয়ামী লীগ সরকারে থাকায় দেশের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সকল ষড়যন্ত্র ভেদ করেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। সবাই আমরা একসাথে কাজ করে এই বাংলাদেশকে জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা, দারিদ্র্যমুক্ত, স্মার্ট বাংলাদেশ করবো ইনশাআল্লাহ। ৭ জানুয়ারির নির্বাচনে বাংলাদেশের জনগণের জয় হয়েছে। এ জয় গণতন্ত্রের জয়, এ জয় বাংলাদেশের জনগণের জয়।’

কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ভবেন্দ্রনাথ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকার উন্নয়ন প্রতিনিধি ও সাবেক সিনিয়র সচিব শহীদ উল্লা খন্দকার, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মাহাবুব আলী খান, কোটালীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আয়নাল হোসেন সেখ।

পরে কোটালীপাড়াবাসীর পক্ষে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ ও প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকার উন্নয়ন প্রতিনিধি শহীদ উল্লা খন্দকার প্রধানমন্ত্রীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

Check Also

প্রকল্প বাস্তবায়ন ও ঋণ পরিশোধে বাংলাদেশের অবস্থান ভালো: বিশ্বব্যাংকের এমডি

শেরপুর ডেস্ক: প্রকল্প বাস্তবায়ন এবং ঋণ পরিশোধের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান ভালো বলে জানিয়েছেন বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen + six =

Contact Us