সর্বশেষ সংবাদ
Home / দেশের খবর / ভোট যুদ্ধে টিকে থাকলেন ১৮৯৬ প্রার্থী

ভোট যুদ্ধে টিকে থাকলেন ১৮৯৬ প্রার্থী

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনে রবিবার (১৭ ডিসেম্বর) জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, কো চেয়ারম্যান সালমা ইসলাম, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া ও বর্তমান ৫ এমপিসহ ৩৪৭ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এছাড়া জাকের পার্টির পক্ষ থেকে সারাদেশে ২১৯ জন প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের মহাসচিব শামীম হায়দার। রবিবার রংপুর-৩ আসনটি বহাল রেখে ঢাকা-১৭ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের। আবার ঢাকা-১৮ আসনটি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদেরের স্ত্রী ও দলের নতুন প্রেসিডিয়াম সদস্য শেরীফা কাদেরকে ছেড়ে দিতে এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য মোহাম্মদ হাবিব হাসান মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নেন।

রবিবার আওয়ামী লীগের সঙ্গে দেনদরবার শেষে ২৬টি আসন পায় একাদশ জাতীয় সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টি। এর পরে ঢাকা-৬ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার করেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান কাজী ফিরোজ রশীদ। এ আসন থেকে নির্বাচন করবেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সাঈদ খোকন। এদিন একই আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী সাঈদ খোকনের স্ত্রী ফারহানা সাঈদও। একই কারণে ঢাকা-১৭ আসন থেকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম। এদিকে আসন বরাদ্দ না পাওয়ায় চট্টগ্রাম-১ (মিরসরাই) আসনে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া।ফেনী-১ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার করেন বর্তমান সংসদ সদস্য ও জাসদ (ইনু) কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার।

জাতীয় পার্টিকে আসন ছাড় দেয়ার কারণে বাদ পড়লেন ৬ এমপি। এরা হলেন- কুড়িগ্রাম-১ আসনের আছলাম হোসেন সওদাগর, গাইবান্ধা-২ মাহবুব আরা বেগম গিনি, পটুয়াখালী-১ মো. আফজাল হোসেন, ঢাকা-১৮ মোহাম্মদ হাবিব হাসান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ মো. শাহজাহান আলম ও চট্টগ্রাম-৮ নোমান আল মাহমুদ। এছাড়া জাপাকে আসন দিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীতা পেয়েও তা প্রত্যাহার করেন আওয়ামী লীগের ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে মো. ইমদাদুল হক, নীলফামারী-৩ আসনে মো. গোলাম মোস্তফা, নীলফামারী-৪ আসনে মো. জাকির হোসেন বাবুল, রংপুর-১ আসনে মো. রেজাউল করিম রাজু, রংপুর-৩ আসনে তুষার কান্তি মণ্ডল, কুড়িগ্রাম-২ আসনে মো. জাফর আলী, গাইবান্ধা-১ আসনে আফরুজা বারী, বগুড়া-২ আসনে তৌহিদুর রহমান মানিক, বগুড়া-৩ আসনে মো. সিরাজুল ইসলাম খান রাজু, সাতক্ষীরা-২ আসনে মো. আসাদুজ্জামান বাবু, বরিশাল-৩ আসনে সরদার মো. খালেদ হোসেন, পিরোজপুর-৩ আসনে মো. আশরাফুর রহমান, ময়মনসিংহ-৫ আসনে মো. আব্দুল হাই আকন্দ, ময়মনসিংহ-৮ আসনে মো. আব্দুছ ছাত্তার, কিশোরগঞ্জ ৩ আসনে মো. নাসিরুল ইসলাম খান, মানিকগঞ্জ-১ আসনে মো. আব্দুস সালাম, হবিগঞ্জ-১ ডা. মো. মুশফিক হুসেন চৌধুরী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে মো. শাহজাহান আলম, ফেনী-৩ আসনে মো. আবুল বাশার, চট্টগ্রাম-৫ আসনে মোহাম্মদ আবদুস সালাম এবং ফেনী-৩ আসনে নৌকার মনোনীত প্রার্থী আবুল বাশার। লক্ষ্মীপুরের দুইটি আসন থেকে তিনজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। এর মধ্যে জোটগত কারণে লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি-কমলনগর) আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ফরিদুন্নাহার লাইলি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন।

এদিকে ঢাকার ১৫টি আসনে (ঢাকা-৪ থেকে ১৮ আসন) ২৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। এসব আসনে মোট বৈধ প্রার্থী ছিলেন ১৫২ জন। বর্তমানে বৈধ প্রার্থী আছেন ১২৫ জন। রংপুরের ছয়টি আসন থেকে ১০ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। রংপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী তুষার কান্তি মণ্ডল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শাহজাহান আলম, সিলেট-১ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ সাতক্ষীরা-২ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আসাদুজ্জামান বাবু প্রমুখ দলীয় নির্দেশে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেন।

ইসির দেয়া তথ্য অনুযায়ী, এবারে নির্বাচনে মোট ২ হাজার ৭৪১টি মনোনয়নপত্র জমা পড়ে। আর রিটানিং কর্মকর্তার যাচাই বাছাইয়ে এর থেকে ৭৩১টি মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। রিটানিং কর্মকর্তার মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে ইসিতে ৫৬০ টি আপিল আবেদন জমা পরে। এ আপিল আবেদনের ওপর গত ১০ ডিসেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত শুনানী শেষে ২৮৬ জন তাদের প্রার্থীতা ফিরে পান। এ নিয়ে সারাদেশে মোট বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা ছিল ২ হাজার ২৬০ টি। রবিবার ৩৪৭ টি মনোনয়ন প্রত্যাহার শেষে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটের মাঠে মোট প্রার্থী দাঁড়াল ১৮৯৬ জন। সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে, আর প্রতীক নিয়ে প্রচারে নামবেন তারা। আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

 

Check Also

প্রকল্প বাস্তবায়ন ও ঋণ পরিশোধে বাংলাদেশের অবস্থান ভালো: বিশ্বব্যাংকের এমডি

শেরপুর ডেস্ক: প্রকল্প বাস্তবায়ন এবং ঋণ পরিশোধের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান ভালো বলে জানিয়েছেন বিশ্বব্যাংকের ব্যবস্থাপনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × two =

Contact Us