Home / কৃষি / এআইপি সম্মাননা পাচ্ছেন শাইখ সিরাজসহ ২২ জন

এআইপি সম্মাননা পাচ্ছেন শাইখ সিরাজসহ ২২ জন

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় এসিআই এগ্রিবিজনেসেসের প্রেসিডেন্ট এ কে এম ফারায়েজুল হক আনসারী ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব শাইখ সিরাজসহ ২২ জন ব্যক্তিকে এআইপি হিসেবে মনোনীত করেছে কৃষি মন্ত্রণালয়। পাঁচটি ক্যাটাগরিতে ২২ জনকে ২০২১ সালের জন্য ‘কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এগ্রিকালচারাল ইম্পর্ট্যান্ট পারসন-এআইপি)’ সম্মাননা দেবে কৃষি মন্ত্রণালয়। আগামী ৭ জুলাই ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মনোনীতদের হাতে এআইপি কার্ড তুলে দেওয়া হবে।

জানা গেছে, সিআইপির (বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি) মতো স্বীকৃতি দিতে ২০২০ সাল থেকে কৃষিক্ষেত্রে এআইপি সম্মাননা দিচ্ছে সরকার।

২০২০ সালের সম্মাননা ২০২২ সালে দেওয়া হয়। তখন ১৩ জনকে এআইপি সম্মাননা দেওয়া হয়। ‘কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি নীতিমালা, ২০১৯’ অনুযায়ী মনোনীতরা এআইপি কার্ডের সঙ্গে মন্ত্রণালয় থেকে একটি প্রশংসাপত্র পাবেন। এআইপির মেয়াদ হবে এক বছর। চলতি বছরের জুলাই থেকে পরের বছরের জুন মাস পর্যন্ত।

এআইপিরা সচিবালয়ে প্রবেশের জন্য প্রবেশ পাস পাবেন। বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠান ও সিটি/মিউনিসিপ্যাল করপোরেশনের নাগরিক সংবর্ধনায় আমন্ত্রণ পাবেন। বিমান, রেল, সড়ক ও জলপথে ভ্রমণকালে সরকার পরিচালিত গণপরিবহনে আসন সংরক্ষণ অগ্রাধিকার পাবেন।

নীতিমালা অনুযায়ী ‘কৃষি (উদ্ভাবন জাত/প্রযুক্তি)’ ক্যাটাগরিতে চারজন, ‘কৃষি উৎপাদন/বাণিজ্যিক খামার স্থাপন ও কৃষি প্রক্রিয়াকরণ শিল্প’ ক্যাটাগরিতে ১০ জন, ‘রপ্তানিযোগ্য কৃষি পণ্য উৎপাদন’ ক্যাটাগরিতে দুজন, ‘স্বীকৃত বা সরকার কর্তৃক রেজিস্ট্রিকৃত কৃষি (ফসল/ মৎস্য/প্রাণিসম্পদ/বনজসম্পদ উপখাতভুক্ত) সংগঠন’ ক্যাটাগরিতে তিনজন এবং ‘বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরস্কারে স্বর্ণপদক প্রাপ্ত’ ক্যাটাগরিতে তিনজন এআইপি নির্বাচিত হয়েছেন।

কৃষি উদ্ভাবন জাত ও প্রযুক্তি ক্যাটাগরিতে সম্মাননার জন্য নির্বাচিত হয়েছেন এসিআই এগিবিসনেসেসের প্রেসিডেন্ট এ কে এম ফারায়েজুল হক আনসারী। তিনি ৩৫ বছর ধরে কৃষির বিভিন্ন ক্ষেত্রে গবেষণা এবং সম্প্রসারণে অবদান রেখেছেন। এসিআই লিমিটেড ১৯৯৯ সালে সর্বপ্রথম দেশে হাইব্রিড ধানের প্রবর্তন করে। এ পর্যন্ত এসিআই প্রতিষ্ঠান তাদের নিজস্ব গবেষণালব্ধ ১৩টি হাইব্রিড ধানের জাত বাজারজাত করেছে।

অন্যদিকে স্বীকৃত বা সরকার কর্তৃক রেজিস্ট্রিকৃত কৃষি (ফসল/ মৎস্য/প্রাণিসম্পদ/বনজসম্পদ উপখাতভুক্ত) সংগঠন ক্যাটাগরিতে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল চ্যানেল আই-এর পরিচালক শাইখ সিরাজ নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি কৃষি বিষয়ক বিভিন্ন অনুষ্ঠান পরিকল্পনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনার মাধ্যমে বাংলাদেশের কৃষি উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় তিনি এ সম্মাননা পাচ্ছেন।
কৃষি (উদ্ভাবন জাত/প্রযুক্তি) ক্যটাগরিতে কুমিল্লা দাউদকান্দির কৃষি উদ্যোক্তা এম এ মতিন (মতিন সৈকত) সম্মাননা পাচ্ছেন। কৃষি যান্ত্রিকীকরণ নিয়ে গবেষণার কারণে এ ক্যাটাগরিতে সম্মাননা পাচ্ছেন চুয়াডাঙ্গার জনতা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের স্বত্বাধিকারী মো. ওলি উল্লাহ। বাগেরহাট ফকিরহাটের উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান স্বপন কুমার দাশও সম্মাননার জন্য মনোনীত হয়েছেন।

কৃষি উৎপাদন/বাণিজ্যিক খামার স্থাপন ও কৃষি প্রক্রিয়াকরণ শিল্প ক্যাটাগরিতে টাঙ্গাইল মধুপুরের কৃষি উদ্যোক্তা মো. ছানোয়ার হোসেন এ ক্যাটাগরিতে মনোনীত হয়েছেন। তিনি কৃষি বিভাগের পরামর্শে উন্নত জাতের জাম্বুরা, আনারস, পেয়ারা, ড্রাগন, সৌদি খেজুর, ভিয়েতনামী খাটো জাতের নারকেল, মিশরীয় ডুমুর ইত্যাদি বিভিন্ন অর্থকরী ফসলের বাগান গড়ে তুলেছেন। তার উৎপাদিত ফসল দেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্রির পাশাপাশি বিদেশেও রপ্তানি হয়।

এ ক্যাটাগরিতে আরো সম্মানরা পাচ্ছেন ফরিদপুরের পেঁয়াজ ও পেঁয়াজের বীজ উৎপাদনকারী উদ্যোক্তা শাহীদা বেগম, খুলনা ডুমুরিয়ার কৃষি উদ্যোক্তা সুরেশ্বর মল্লিক, পেঁয়াজ ও পেঁয়াজের বীজ উৎপাদনকারী উদ্যোক্তা শাহীদা বেগম, চুয়াডাঙ্গার জীবননগরের গ্রিন প্ল্যানেট এগ্রোর মালিক মো. রুহুল আমিন, সিরাজগঞ্জ রায়গঞ্জের মো. সাখাওয়াত হোসেন ও পাবনার ঈশ্বরদীর সফল দুগ্ধ খামারি মো. আমিরুল ইসলাম এআইপি হচ্ছেন।

নোয়াখালী বেগমগঞ্জের মাছুদুল হক চৌধুরী কৃষি উৎপাদন, বাণিজ্যিক মৎস্য খামার ও কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পের মাধ্যমে কৃষিক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় এআইপি সম্মাননা পাচ্ছেন। ঠাকুরগাঁও সদরের কৃষি উদ্যোক্তা মো. রফিকুল ইসলামকেও এ ক্যাটাগরিতে মনোনীত করা হয়েছে। সিলেট ফেঞ্জুগঞ্জের আরেক সফল কৃষি উদ্যোক্তা মো. সিরাজুল ইসলাম রেখন সম্মাননা পাচ্ছেন। শেরপুরের মো. হযরত আলী ফল চাষ করে ২০২১-২২ অর্থবছরে ১৫ কোটি ১৩ লাখ টাকা আয় করেছেন। তিনিও এআইপি নির্বাচিত হয়েছেন।

‘রপ্তানিযোগ্য কৃষিপণ্য উৎপাদন’ ক্যাটাগরিতে এআইপি সম্মাননা পাচ্ছেন গাজীপুর সদরের বনসাই শিল্পী কে এম সবুজ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরের কৃষি উদ্যোক্তা মোহা. রফিকুল ইসলাম।

সম্মাননা পাচ্ছেন চট্টগ্রামের পরিবেশ বিষয়ক সংগঠক সাহেলা আবেদীন (রিমা)। তিনি সংগঠন ‘তিলোত্তমা চট্টগ্রাম’ এর মাধ্যমে চট্টগ্রাম শহরে প্রায় ২০০ ছাদ বাগান স্থাপন করেছেন। এ ক্যাটাগরিতে আরো পুরস্কার পাচ্ছেন সাতক্ষীরা কলারোয়ার একজন সফল নারী কৃষি উদ্যোক্তা শিখা রানী চক্রবর্তী।

বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরস্কারে স্বর্ণপদক প্রাপ্ত নীলফামারীর ডোমারের জৈব সার উৎপাদক ও গবেষক রাম নিবাস আগরওয়ালা সম্মাননা জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। নবাবগঞ্জের কমলাকান্দার অমিত ডেইরি ফার্মের স্বত্বাধিকারী মায়া রানী বাউল এআইপি হচ্ছেন। এ ক্যাটাগরিতে মনোনীত হয়েছেন পাবনা আটঘড়িয়ার সফল বীজ উৎপাদনকারী মো. আব্দুল খালেক। বীজ উৎপাদন ও সংরক্ষণে অসামান্য অবদান রাখায় তিনি বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পুরস্কার পেয়েছেন।

Check Also

ধান-চাল সংগ্রহে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়ে সংশয়

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: চলতি বোরো মৌসুমে ধান-চাল সংগ্রহ অভিযানের সফলতা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। এ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

seventeen + twelve =

Contact Us