Home / খেলাধুলা / অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ সুপার সিক্স পেরিয়ে সেমিফাইনালে বাংলাদেশ

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ সুপার সিক্স পেরিয়ে সেমিফাইনালে বাংলাদেশ

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: সুপার সিক্স পেরিয়ে সেমিফাইনালে যাওয়ার পথটা মোটেও সহজ ছিলো না বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের। তবে সেই কঠিন পথে আজ কিছুটা হলেও এগিয়েছেন বাংলাদেশের যুবারা। নেপাল অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে পাত্তা না দিয়ে পেয়েছেন দাপুটে এক জয়। তবে এটুকুই যথেষ্ট নয়, পাকিস্তানের বিপক্ষে পরের ম্যাচটাও জিততে হবে দাপটের সঙ্গেই।

ব্লুমফন্টেইনে বাংলাদেশের ৫ উইকেটে পাওয়া জয়ের ভিতটা তৈরি করে দেন বোলাররা। নেপালকে ১৬৯ রানের মধ্যে আটকে দেয়। ১৯ রানে ৪ উইকেট নিয়ে নেপালের ব্যাটিংকে দাঁড়াতে না দেয়ার কাজে নেতৃত্ব দেন পেসার রোহানাত দৌল্লাহ, ৩৪ রানে ৩ উইকেট নেন অফ স্পিনার পারভেজ জীবন। রান তাড়ায় উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান জিসান আলমের ৪৩ বলে ৫৫ রানের ইনিংসে কাজ সহজ হয়ে আসে বাংলাদেশের, পরে আরিফুল ইসলামের ৩৮ বলে ৫৯ রানের ঝোড়ো ইনিংসে ১৪৮ বল বাকি থাকতেই লক্ষ্য ছুঁয়ে ফেলে তারা।

সেমিফাইনালে যেতে নেট রানরেট হয়ে উঠতে পারে গুরুত্বপূর্ণ। নেপালের বিপক্ষে সেটিও বাড়িয়ে নিয়েছে বাংলাদেশ। ৩ ম্যাচে বাংলাদেশের পয়েন্ট এখন ৪, নেট রানরেট ০.৩৪৮। শীর্ষে থাকা ভারতের ৩ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট, রানরেট ৩.৩২৭। দুইয়ে থাকা পাকিস্তানের ৪ পয়েন্ট, রানরেট ১.০৬৪। আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের পরের ম্যাচ পাকিস্তানের বিপক্ষে।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের এ আসরে আইসিসির একমাত্র সহযোগী দেশ হিসেবে সুপার সিক্সে এসেছে নেপাল। টসে জিতে ব্যাটিং নিলেও ৮.৩ ওভারে ২৯ রান তুলতে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে তারা। সে ৩ উইকেট অবশ্য নেন বাংলাদেশের তিন পেসার রোহানাত, ইকবাল হোসেন ও মারুফ মৃধা।

চতুর্থ উইকেটে নেপাল অধিনায়ক দেব খানাল ও বিশাল বিক্রম একটু প্রতিরোধ গড়েছিলেন তাদের ১১৫ বলে ৬২ রানের জুটিতে। খানালকে ফিরিয়ে সে জুটি ভাঙেন জিসান আলম। বিক্রম এরপর এক প্রান্ত ধরে রাখলেও অন্যদিকে নিয়মিত উইকেট হারাতে থাকে নেপাল।

চতুর্থ উইকেটের পর পঞ্চম উইকেটে গুলশান ঝায়ের সঙ্গে বিক্রমের ৩০ ও শেষ উইকেটে গিয়ে ২৭ রানের বাইরে আর কোনো জুটি দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেনি। মাঝে দ্রুত ৩ উইকেট নিয়ে নেপালের আর কোনো প্রতিরোধের আশা শেষ করে দেন জীবন, শেষে রোহানাত নেন আরও ২ উইকেট। ১ বল বাকি থাকতেই অলআউট হয়ে যায় নেপাল।

রান তাড়ায় আশিকুর রহমান ও জিসানের উদ্বোধনী জুটিতে ওঠে ৬৭ রান। ৩৪ বলে ১৬ রান করে আশিকুর থামলেও টুর্নামেন্টে দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নামা জিসান ৪৩ বলে করেন ৫৫ রান, ৬টি চারের সঙ্গে মারেন ২টি ছক্কা। মাঝে দ্রুত ২ উইকেট হারালেও আরিফুল ইসলামের ঝোড়ো ইনিংসে ২৫.২ ওভারের মধ্যেই জয় পায় বাংলাদেশ। আশিকুর ছাড়া পরের সব ব্যাটসম্যানই দ্রুত রান তোলার দিকে নজর দিয়েছেন, নেট রানরেট যে তাঁদের মাথায় ছিল তা বলাই যায়। তাতে সফলও হয়েছেন তাঁরা।

Check Also

জানা গেল মুস্তাফিজের ম্যাচের সময়সূচি

শেরপুর ডেস্ক: ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) দল চেন্নাই সুপার কিংসে যোগ দিয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান। আগামী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × 5 =

Contact Us