সর্বশেষ সংবাদ
Home / অর্থনীতি / ৬০ লাখ লিটার রাইস ব্রান ভোজ্যতেল কেনার প্রস্তাব

৬০ লাখ লিটার রাইস ব্রান ভোজ্যতেল কেনার প্রস্তাব

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: ফ্যামিলি কার্ডধারী নিম্ন আয়ের মানুষদের মধ্যে ভর্তুকি মূল্যে ভোজ্যতেল সরবরাহের লক্ষ্যে ৬০ লাখ লিটার রাইস ব্রান তেল ক্রয় করবে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। স্থানীয়ভাবে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে দু’টি লটের আওতায় এ রাইস ব্রান তেল ক্রয় করা হবে। দুই লিটার পেট বোতলে প্রতি লিটার তেলের দাম পড়বে ১৫৭ টাকা ৫০ পয়সা। সে হিসাবে মোট ব্যয় হবে ৯৪ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির আগামী বৈঠকে এ-সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হতে পারে বলে জানা গেছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, চলতি ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরে টিসিবির বার্ষিক ক্রয় পরিকল্পনায় ২৮ কোটি ৮০ লাখ লিটার ভোজ্যতেল ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে। এর মধ্যে ১৩ কোটি ১৫ লাখ লিটার ভোজ্যতেল ক্রয়ের চুক্তি হয়েছে। চুক্তির বাইরে আরো ৬০ লাখ লিটার ভোজ্যতেল ক্রয় করা হবে।

সূত্র জানায়, সমগ্র দেশে (সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাসহ) টিসিবির ফ্যামিলি কার্ডধারী নিম্ন আয়ের এক কোটি পরিবারের মধ্যে প্রতি মাসে ভর্তুকি মূল্যে টিসিবির পণ্য বিক্রির কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে প্রতি মাসে টিসিবির পণ্য বিক্রির কার্যক্রম নিরবচ্ছিন্ন রাখার লক্ষ্যে দেশীয় শিল্পের অগ্রাধিকার ও বৈদেশিক মুদ্রা তথা ডলার ব্যয় সঙ্কুলান এবং গত ৩১ অক্টোবর, ৬ নভেম্বর, ১৫ নভেম্বর, ২০ নভেম্বর ও ৩০ নভেম্বর তারিখে উন্মুক্ত দরপত্রের (জাতীয়) মাধ্যমে সয়াবিন তেলের কোনো দরপ্রস্তাব না পাওয়ায় এবং ভোজ্যতেলের জরুরি প্রয়োজন বিবেচনায় স্থানীয়ভাবে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে রাইস ব্রান তেল কেনা দরকার হয়ে পড়েছে।

সূত্র জানায়, টিসিবির গুদামের ধারণক্ষমতা পর্যাপ্ত নয়। সে পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় উৎপাদনকারীদের উৎপাদন ও সরবরাহ সক্ষমতা বিবেচনায় ৬০ লাখ লিটার রাইস ব্রান তেল একটি প্যাকেজের দু’টি লটে (১ম লটে ৪৫ লাখ লিটার ও ২য় লটে ১৫ লাখ লিটার) ক্রয়ের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
সূত্র জানায়, ইতঃপূর্বে ২০২২ সালের ১০ আগস্ট তারিখে অনুষ্ঠিত অর্থনৈতিক বিষয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় রাষ্ট্রীয় জরুরি প্রয়োজনে অনুমোদনের তারিখ থেকে ২০২৪ সালের মার্চ পর্যন্ত নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য পেঁয়াজ, রসুন, মসুর ডাল, ছোলা, শুকনা মরিচ, দারুচিনি, লবঙ্গ, এলাচ, ধনে, জিরা, আদা, হলুদ, তেজপাতা, সয়াবিন তেল, পাম অয়েল, চিনি, লবণ, আলু, খেজুর ও রাইস ব্রান তেলসহ অন্যান্য ভোজ্যতেল আমদানি/স্থানীয় বাজার থেকে সংগ্রহের লক্ষ্যে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতি অনুসরণ করে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রী ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়।

জানা গেছে, টিসিবির জন্য ৬০ লাখ লিটার রাইস ব্রান তেল সংগ্রহের জন্য গত ১৩ ডিসেম্বর রাইস ব্রান তেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান মজুমদার প্রোডাক্টস লিমিটেড ও এমআরটি অ্যাগ্রো প্রডাক্টস লিমিটেডের কাছ থেকে ২ লিটার পেট বোতলে রাইস ব্রান তেল সরবরাহের জন্য দরপ্রস্তাব আহ্বান করা হয়। দরপ্রস্তাবে সারা দিয়ে মজুমদার প্রোডাক্টস লিমিটেড ২ লিটারের পেট বোতলে ৪৫ লাখ লিটার রাইস ব্রান তেল সরবরাহে সম্মতি দেয় এবং প্রতি লিটার তেলের প্রস্তাবিত দর ছিল ১৫৯ টাকা।

অন্য দিকে এমআরটি অ্যাগ্রো প্রোডাক্টস বিডি লিমিটেড ১৫ লাখ লিটার রাইস ব্রান তেল সরবরাহে সম্মতি দেয় এবং দরপ্রস্তাবে প্রতি লিটার তেলের মূল্য ১৫৯ টাকা উল্লেখ করে। সূত্র জানায়, দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে অগ্রীম আয়কর, মূসক ও পরিবহন খরচসহ প্রতি লিটার রাইস ব্রান তেলের মূল্য ১৫৭.৫০ টাকা নির্ধারণ করে এবং সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান দুটো তাতে সম্মতি দেয়। এর ফলে প্রথম লটে মজুমদার প্রডাক্টস লিমিটেডের কাছ থেকে ৪৫ লাখ লিটার রাইস ব্রান তেল ক্রয়ে ব্যয় হবে ৭০ কোটি ৮৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা।
অন্য দিকে এমআরটি অ্যাগ্রো প্রডাক্টস বিডি লিমিটেড থেকে ১৫ লাখ লিটার ক্রয়ে ব্যয় হবে ২৩ কোটি ৬২ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

 

Check Also

৭ মাসে রেমিট্যান্স এসেছে এক লাখ ৪২ হাজার কোটি টাকা

শেরপুর নিউজ ডেস্ক: অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী জানিয়েছেন, চলতি অর্থবছরের (২০২৩-২৪) প্রথম সাত মাসে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × three =

Contact Us