Home / বিদেশের খবর / অত্যাধুনিক ‘থার্মাল ক্যামেরা’ আবিষ্কার করে বিশ্বকে চমকে দিল ইরান!

অত্যাধুনিক ‘থার্মাল ক্যামেরা’ আবিষ্কার করে বিশ্বকে চমকে দিল ইরান!

ডেস্ক রিপোর্ট: বিশ্বব্যাপী আতঙ্কের সৃষ্টি করেছে নভেল করোনা ভাইরাস। চীন থেকে উৎপত্তি হওয়া ভাইরাসটি এরই মধ্যে ইরানে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিরোধে হিমসিম খাচ্ছে ইরান সরকার। তবে এবার করোনা সনাক্তে নিজস্ব প্রযুক্তির থার্মাল ইমেজ ক্যামেরা উদ্ভাবন করে বিশ্বকে চমকে দিয়েছে দেশটি। গত বুধবার ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি থার্মাল ইমেজ ডিটেকশন স্ক্যানার ক্যামেরা জনসমক্ষে প্রদর্শন করেছে। এটি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্তকরণে কাজে আসবে।
ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিশেষজ্ঞরা এটি তৈরি করেছেন এবং খুব শিগগিরই তা বাজারে আসবে। এরই মধ্যে ইরানের কয়েকটি বিমানবন্দরে এসব থার্মাল ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। ব্যাপক সংখ্যায় তৈরির পর সেগুলো ইরানের অন্যান্য জনসমাগম স্থলেও স্থাপন করা হবে।
ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ইলেকট্রনিক শিল্প বিভাগের প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহরুখ শাহরাম জানিয়েছেন, ‘ইরানের তৈরি নতুন এই থার্মাল স্ক্যানার ক্যামেরা দূর থেকে একই সঙ্গে কয়েক জন ব্যক্তির দেহের তাপমাত্রা পরিমাপ করতে পারে এবং আধা সেন্ট্রিগ্রেডের চেয়ে কম তাপও এতে ধরা পড়বে।’
করোনা সনাক্তে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থার্মাল স্ক্যানার ব্যবহার করা হচ্ছে। এসব থার্মাল স্ক্যানারের ক্যামেরার সামনে দিয়ে হেঁটে গেলেই জ্বর আছে কিনা তা সহজেই শনাক্ত করা যায়। তবে এসব স্ক্যানার তৈরির প্রযুক্তি এতদিন মূলত আমেরিকা, জাপান ও চীনসহ গুটি কয়েক দেশের নিয়ন্ত্রণে ছিল। এবার ইরানও তা তৈরিতে সক্ষম হলো। এর আগে ইরান করোনাভাইরাস শনাক্তকরণের টেস্ট কিট তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে। ইরানে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত আরও ৬৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৩৫৪ জনে। আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৯ হাজার। উৎপত্তিস্থল চীন এবং ইউরোপের দেশ ইতালির পর বিশ্বে ইরানেই সবচেয়ে বেশি মানুষ ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়ে মারা গেল।

Check Also

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবচেয়ে ভয়াবহ পরিস্থিতিতে বিশ্ব: জাতিসংঘ

করোনাভাইরাসে সৃষ্ট মহামারী দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ-পরবর্তী বিশ্বে সবচেয়ে ভয়াবহ সংকটের সৃষ্টি করেছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 + 7 =