Home / বগুড়ার খবর / ধুনট / ধুনটে পাওনা টাকা চাওয়ায় নারীকে পেটালেন পুলিশ কর্মকর্তা

ধুনটে পাওনা টাকা চাওয়ায় নারীকে পেটালেন পুলিশ কর্মকর্তা

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় পাওনা ৬০ হাজার টাকা ফেরত চাওয়ায় কৌশলে থানায় ডেকে কোহিনুর খাতুন (৪২) নামে  দুই সন্তানের জননীকে পিটিয়ে আহত করেছেন সহকারী  উপ-পরিদর্শক (এএসআই) শাহানুর রহমান।

আহত কোহিনুর ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শুক্রবার দুপুরের দিকে এ ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তাকে থানা থেকে বগুড়া পুলিশ লাইনসে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বগুড়া শহরের নাটাইপাড়া বৌ-বাজার এলাকার জাকির হোসেনের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী কোহিনুর খাতুন। স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় দীর্ঘদিন কোহিনুর তার বাবা একই এলাকার জাবেদ আলীর বাড়িতে থাকেন। বগুড়া জজ কোর্টের সামনে খাবারের দোকানের আয় দিয়ে কোহিনুর সংসারের খরচ চালান।

জানা গেছে, অভিযুক্ত শাহানুর রহমান সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পোতাজিয়া গ্রামের বাসিন্দা। তিনি ২০১০ সালে বগুড়া পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে চাকরি করতেন। ওই সময় কোহিনুরের দোকানে প্রতিদিন খাবার খেতেন শাহানুর রহমান। সেই সুবাদে কোহিনুরের সঙ্গে তার গভীর সখ্যতা গড়ে উঠে। কোহিনুরের বাসায় শাহানুর রহমানের অবাধ যাতায়াত ছিল। ওই সময় শাহানুর কৌশলে কোহিনুরের কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। বিগত ২০১৬ সালে নভেম্বর মাসে শাহানুর রহমান বগুড়া থেকে বদলি হয়ে ধুনট থানায় যোগদান করেন। এতে কোহিনুরের সঙ্গে শাহানুরের সম্পর্কের ফাটল ধরে।

বিভিন্ন সূত্র আরো জানায়, প্রায় দুই মাস আগে পাওনা টাকা চেয়ে শাহানুরকে উকিল নোটিশ দেয় কোহিনুর। কিন্তু উকিল নোটিশে সাড়া দেয়নি শাহানুর রহমান। ফলে বগুড়া আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলার প্রস্তুতি নেয় কোহিনুর। খবর পেয়ে শাহানুর রহমান এক  সপ্তাহ আগে কোহিনুর খাতুনকে ৬০ হাজার টাকা পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেয়।

বৃহস্পতিবার সকালের দিকে কোহিনুর খাতুন পাওনা টাকার জন্য ধুনট থানায় আসেন। এ বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শাহানুর রহমান পিটিয়ে থানা থেকে কোহিনুরকে বের করে দেয়। আহত কোহিনুর ধুনট থানার পাশেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে গেলে সেখানেও তাকে পেটান শাহানুর। এ সময় স্থানীয় লোকজন কোহিনুর খাতুনকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এ বিষয়ে কোহিনুর খাতুন বলেন, শাহানুর কৌশলে আমার কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা নিয়েছে। সেই টাকা চাইলে সে আমাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু আমি তার প্রস্তাবে রাজি হইনি। আর এজন্য সে আমার উপর ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। তারপর থেকে সে আমাকে বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করে। ফলে তার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেই। বিষয়টি জানার পর শাহানুর টাকা দেওয়ার কথা বলে বৃহস্পতিবার কৌশলে থানায় ডেকে এনে আমাকে পিটিয়ে আহত করেছে।

এ বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তা শাহানুর রহমান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে সে আমাকে মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়ের চেষ্টা করছিল। অবশেষে ঝামেলা এড়াতে তাকে ৬০ হাজার টাকা দিয়ে আপসনামায় স্বাক্ষর নেয়া হয়েছে। তারপরও বৃহস্পতিবার থানায় এসে আমাকে মামলার ভয়ভীতি দেখালে ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে চড়-থাপ্পড় মেরেছি।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোকবুল হোসেন ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আহত কোহিনুরের চিকিৎসার খোঁজ নেন। পরে অভিযুক্ত ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে থানা থেকে বগুড়া পুলিশ লাইনসে প্রত্যাহার করা হয় বলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপাররা জানান।

Check Also

ধুনটে ড্রেজার মেশিন গুড়িয়ে দিয়েছে প্রশাসন

এম.এ রাশেদ: বগুড়ার ধুনট উপজেলার নিমগাছী ইউনিয়নের জয়শিং ও ধামাচামা গ্রামের ৪ পয়েন্টে বালু উত্তোলন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 3 =