Home / দিবস / মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের জন্মদিন প্রয়াণ দিবস

মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের জন্মদিন প্রয়াণ দিবস

suchitra-sen-mahanayikaআজ ১৭ জানুয়ারি কিংবদন্তী এই নায়িকার প্রয়াণ দিবস ৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল, বাংলাদেশের পাবনায় জন্মগ্রহণ করেন এই নায়িকা। শৈশব কেটেছে সেখানেই। বাবা করুণাময় দাশগুপ্ত ছিলেন স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। বাবা-মায়ের পঞ্চম সন্তান ছিলেন সুচিত্রা। ১৯৪৭ সালে কলকাতার বিশিষ্ট বাঙালি শিল্পপতি আদিনাথ সেনের ছেলে দীবানাথ সেনের সঙ্গে বিয়ে হয় তাঁর। তাঁদের ঘরে একমাত্র সন্তান মুনমুন সেন।
১৯৫২ সালে তিনি চলচ্চিত্র জগতে প্রথম পা রাখেন। প্রথম ছবি করেন ‘শেষ কোথায়’। তবে ছবিটি আর মুক্তি পায়নি। এরপর ১৯৫৩ সালে মহানায়ক উত্তম কুমারের সঙ্গে ‘সাড়ে চুয়াত্তর’ ছবি করে সাড়া ফেলে দেন চলচ্চিত্র অঙ্গনে। সুচিত্রা সেন বাংলা ও হিন্দি ছবিতে অভিনয় করেন। তাঁর অভিনীত প্রথম হিন্দি ছবি দেবদাস (১৯৫৫)। সুচিত্রা সেন ১৯৭৮ সালে প্রণয় পাশা ছবি করার পর লোকচক্ষুর অন্তরালে চলে যান। এরপর থেকে তিনি আর জনসমক্ষে আসেননি। মাঝে একবার ভোটার পরিচয়পত্রে নাম অন্তর্ভুক্ত করতে ছবি তুলতে ভোটকেন্দ্রে যান।
তার জন্মদিন উপলক্ষে বাংলাদেশের শিল্পাঙ্গন আয়োজন করছে বিশেষ প্রদর্শনী ‘সেরেনাডিং সুচিত্রা’। এতে স্থান পাচ্ছে সুচিত্রাকে নিয়ে বাংলাদেশের নবীন-প্রবীণ ২৮ জন চিত্রশিল্পীর আঁকা ছবি। চিত্রশিল্পীদের মধ্যে আছেন হামিদুজ্জামান খান, রনজিৎ দাস, শেখ আফজাল, গৌতম চক্রবর্তী, কনকচাঁপা চাকমা, মোহাম্মদ ইকবাল, সৈয়দ ইকবাল, আরএ কাজল, জামাল আহমেদ প্রমুখ। প্রদর্শনী চলবে ১৯ এপ্রিল পর্যন্ত। প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা।
অন্যদিকে প্রখ্যাত এই চিত্রনায়িকা সুচিত্রা সেন স্মরণে ভারতের গোয়ায় ৩ দিনব্যাপী ‘সুচিত্রা সেন চলচ্চিত্র উৎসব’-এর আয়োজন করা হয়েছে। আগামী ১১ এপ্রিল শুরু হবে এই চলচ্চিত্র উৎসব। এই উৎসবে সুচিত্রা সেন অভিনীত চলচ্চিত্রসহ অন্যান্য চলচ্চিত্রও প্রদর্শিত হবে। ‘হারানোর সুর’, ‘বোম্বে কা বাবু’, ‘আত্মীয়-স্বজন’, ‘আন্ধি’, ‘গেরিলা’ ও ‘লালটিপ’। সুচিত্রা সেন মাত্র ২৬ বছর চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। এই সময়ে অসংখ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি এর মধ্যে বাংলায় ৫৩ ও হিন্দীতে ৭টি মোট ৬০টি ছবিতে অভিনয় করেন (কারো কারো মতে পঁয়ষট্টিরও বেশি)। সূচিত্রা সেন চলচিত্র জীবনে ৩০টি ছবিতে-ই অভিনয় করেছেন উত্তমকুমারের বিপরীতে। এছাড়া তাঁর সময়য়ের প্রায় সব বিখ্যাত নায়কের বিপরীতেই তিনি অভিনয় করেছেন। সুচিত্রা সেনের ২৬ বছরের অভিনেত্রী জীবনে সাত পাকে বাঁধা ছবির জন্য প্রথম আন্তর্জাতিক সম্মানে ভুষিত হন-১৯৬৩ সালে মস্কো ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সেরা অভিনেত্রীর হিসেবে।
গত ২২ ডিসেম্বর সুচিত্র সেন অসুস্থ হয়ে কলকাতার মিন্টো রোডের ক্লিনিকে ভর্তি হন । সেখানে তাঁর দীর্ঘদিনের চিকিৎসক সুব্রত মৈত্রর অধীনে চিকিৎসা শুরু হয়। টানা ২৬ দিন মৃত্যুর সঙ্গে যুদ্ধ করে অবশেষে হার মেনেছেন বাংলা চলচ্চিত্রের মহানায়িকা সুচিত্রা সেন। অবসান ঘটেছে বাংলা তথা ভারতীয় সিনেমার দুই যুগের বেশি সময়ের। ১৭ জানুয়ারি সকাল আটটা ২৫ মিনিটে কলকাতার বেল ভিউ ক্লিনিকে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন । এর কিছুক্ষণ পর শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮২

Check Also

আজ আষাঢ়ের প্রথম দিবস

শেরপুর নিউজ ২৪ডট নেট: এসেছে বরষা, এসেছে নবীনা বরষা। সোমবার ১ আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ। আষাঢ়ের …

Contact Us